১৫ জুন পর্যন্ত জনসাধারণের চলাচল সীমিত করে প্রজ্ঞাপন

১৫ জুন পর্যন্ত জনসাধারণের চলাচল সীমিত করে প্রজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) বিস্তাররোধ এবং পরিস্থিতির উন্নয়নে আগামী ৩০ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত জনসাধারণের চলাচল সীমিতসহ ১৫ শর্ত দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) ৬৬ দিনের ছুটি শেষে সরকারি ছুটি না বাড়িয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

৫, ৬, ১২ ও ১৩ জুন সাপ্তাহিক ছুটি এ নিষেধাজ্ঞায় অন্তর্ভুক্ত থাকবে উল্লেখ করে এতে বলা হয়েছে,   এ সময়ে জনসাধারণ ও সব কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ কর্তৃক জারিকরা নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। সরকারি কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবে না। সব সরকারি, আধাসরকরি, সায়ত্ত্বশাসিত এবং বেসরকারি অফিসগুলো নিজ নিজ ব্যবস্থাপনায় সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে। ঝূঁকিপূর্ণ ব্যক্তি অসুস্থ কর্মচারী, সন্তান সম্ভবা নারীরা কর্মস্থলে আসা থেকে বিরত থাকবেন। এক্ষেত্রে কর্মকর্তা কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণের জন্য স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে জারিকরা ১৩ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে অনুসরণ করতে হবে। জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় ক্ষেত্র ছাড়া সব সভা ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে আয়োজন করতে হবে।

বিশেষ করে এ সময়ে শর্তসাপেক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন, যাত্রীবাহী নৌযান ও রেল চলাচল করতে পারবে। তবে সর্বাবস্থায় মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে। বিমান কর্তৃপক্ষ নিজ ব্যবস্থাপনায় বিমান চলাচলের বিষয়টি বিবেচনা করবে এবং এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে।