জয়ের দেখা পেল ইতালি

জয়ের দেখা পেল ইতালি

এইতো লা ফিনালিসিমায় আর্জেন্টিনার কাছে নাস্তানাবুদ হয়েছিল ইতালি। ইউরোজয়ী দলটির কি হলো - তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে।

তবে এবার উঠে দাঁড়িয়েছে রবের্তো মানচিনির শিষ্যরা। ইউরোপের আরেক দল হাঙ্গেরিকে  ২-১ গোলে হারিয়ে উয়েফা নেশন্স লিগের এবারের আসরে নিজেদের প্রথম জয় তুলে  ইতালি। 

ঘরের মাঠে মঙ্গলবার রাতে ‘এ’ লিগের তিন নম্বর গ্রুপের ম্যাচটির প্রথমার্ধে দারুণ ফুটবলে দুই গোলে এগিয়ে যায় ইতালি। বিরতির পর একটি গোল শোধ করতে পারে হাঙ্গেরি। অবশ্য গোলটি হাঙ্গেরির কারো পা থেকে আসেনি। আত্মঘাতী গোলে ব্যবধান কমেছে শুধু। তবে সমতায় আর ফিরতে পারেনি হাঙ্গেরি।

ইতালির পক্ষে গোল দুটি করেন নিকোলো বারেল্লা ও লরেন্সো পেল্লেগ্রিনি। দ্বিতীয়ার্ধে আত্মঘাতী গোল করেন জানলুকা মানচিনি। 

সবশেষ সাত ম্যাচে ইতালির কেবল দ্বিতীয় জয় এটি; ড্র তিনটি, হার দুটি। 

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে মাত্তেও পলিতানোর কর্নারে ডি-বক্সে ডিফেন্ডার মানচিনির হেডে বল সরাসরি গোলরক্ষক দেনেস দিবুসের বরাবর যায়। সে যাত্রায় বেঁচে যায় হাঙ্গেরি।

২১তম মিনিটে পলিতানোর আরেকটি কর্নারে মানচিনির আরেকটি হেড রুখে দেন দিবুস। এর চার মিনিট পর হাঙ্গেরির রোলান্দ সালাইয়ের নিচু শট ডান দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকান জানলুইজি দোন্নারুম্মা।

৩০তম মিনিটে সফল হয় ইতালি। লিওনার্দো স্পিনাজ্জোলার পাস বক্সের বাইরে পেয়ে ইন্টার মিলানের মিডফিল্ডার বারেল্লা ডান পায়ের জোরাল শটে বল দূরের পোস্টের ওপরের কোণা দিয়ে জালে জড়ান।

বিরতির ঠিক আগে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন হয় পেল্লেগ্রিনি। ডান দিক দিয়ে একজনকে কাটিয়ে বক্সে ঢুকে বাইলাইনের কাছাকাছি থেকে কাটব্যাক করেন পলিতানো। ছুটে গিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন পেল্লেগ্রিনি। ২-০ গোলে এগিয়ে বিরতিতে যায় ইতালি।

৬১তম মিনিটে গোলের দেখা পায় হাঙ্গেরি। তবে এ নিজেদের কারিশমা নেই। বদলি নামা আতিলা ফিওলার ডান দিক থেকে বাড়ানো নিচু ক্রস ক্লিয়ার করার চেষ্টায় নিজেদের জালে বল পাঠান মানচিনি।

এরপর আর কোনো দল গোলের দেখা পায়নি। খেলা সমাপ্ত হয় ২-১ গোলে। 

এ জয়ের পর দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ইতালি। ৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে হাঙ্গেরি। তিন নম্বরে জার্মানির পয়েন্ট ২, ইংল্যান্ডের ১।

নিজেদের পরের ম্যাচে আগামী শনিবার ইংল্যান্ডের মাঠে খেলবে ইতালি। ঘরের মাঠে জার্মানির বিপক্ষে খেলবে হাঙ্গেরি।